The Leader Of The Time  

দাজ্জাল?ইহুদী খ্রীস্টান ‘সভ্যতা’!  



Get the Flash Player to see this player.

time2online Extensions: Simple Video Flash Player Module

Who's Online  

We have 14 guests online

জনাব মোহাম্মদ বায়াজীদ খান পন্নী

সংক্ষিপ্ত পরিচিতি

জনাব মোহাম্মদ বায়াজীদ খান পন্নী

যামানার এমাম, এমামুয্‌যামান (The Leader of the time)

মাননীয় এমামুয্‌যামান করোটিয়া, টাঙ্গাইলের ঐতিহ্যবাহী পন্নী পরিবারে ১৫ শাবান (লায়লাতুল বরাত) ১৩৪৩ হেজরী, মোতাবেক ১৯২৫ সনের ১১ মার্চ ২৭ ফাল্গুন ১৩৩১ বঙ্গাব্দ, শেষ রাতে নানার বাড়িতে (টাঙ্গাইল শহর) জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর শৈশব কাটে করোটিয়ার নিজ গ্রামে। শিক্ষাজীবন শুরু হয় রোকাইয়া উচ্চ মাদ্রাসায় যার নামকরণ হোয়েছিল করোটিয়ার সা’দাত বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের প্রতিষ্ঠাতা জনাব ওয়াজেদ আলী খান পন্নী’র স্ত্রী অর্থাৎ এমামুয্‌যামানের দাদীর নামে। দুই বছর মাদ্রাসায় পড়ার পর তিনি ভর্ত্তি হন এইচ. এন. ইনস্টিটিউশনে যার নামকরণ হোয়েছিল এমামুয্‌যামানের প্রপিতামহ হাফেজ মাহমুদ আলী খান পন্নী’র নামে। এই স্কুল থেকে তিনি কোলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ১৯৪২ সনে মেট্রিকুলেশন (বর্তমানে এস.এস.সি) পাশ করেন।

argaiv1795

 

 

আল্লাহর মো’জেজা : হেযবুত তওহীদের বিজয় ঘোষণা

বেসমেল্লাহের রহমানের রহিম

আল্লাহর মো’জেজা : হেযবুত তওহীদের বিজয় ঘোষণা

সম্মানিত সুধী,

পৃথিবী আজ অন্যায়, অবিচার, যুলুম, যুদ্ধ, রক্তপাত, হত্যা, ধর্ষণ, বেকারত্ব, দারিদ্র্য অর্থাৎ অশান্তিতে পরিপূর্ণ। পৃথিবীর এমন কোনো দেশ নেই যেখানে সংঘাত, সংঘর্ষ হোচ্ছে না। আজ পৃথিবীর চারদিক থেকে আর্ত্ত মানুষের হাহাকার উঠছে- শান্তি চাই, শান্তি চাই। দুর্বলের ওপর সবলের অত্যাচারে, দরিদ্রের ওপর ধনীর বঞ্চনায়, শোষণে, শাসিতের ওপর শাসকের অবিচারে, ন্যায়ের ওপর অন্যায়ের বিজয়ে, সরলের ওপর ধুর্ত্তের বঞ্চনায় পৃথিবী আজ মানুষের বাসের অযোগ্য হোয়ে পড়েছে। নিরপরাধ ও শিশুর রক্তে আজ পৃথিবীর মাটি ভেজা। শান্তির আশায় বিভিন্ন রকম তন্ত্র-মন্ত্র, বিধান, ব্যবস্থা তৈরী কোরে একটা একটা কোরে প্রয়োগ কোরে দেখা হোয়েছে।

 

হেযবুত তওহীদের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য

বেসমেল্লাহের রহমানের রহিম

 হেযবুত তওহীদের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য


মানুষ মূলতঃ সামাজিক জীব এবং সমাজবদ্ধভাবে বসবাস করে। তার কারণ কোন মানুষই স্বয়ংসম্পূর্ন নয়, জীবনধারণের জন্য তাকে কোন না কোন কারণে অন্যের উপর নির্ভরশীল হোতেই হয়, নির্ভরশীলতার কারণেই তাকে সমাজবদ্ধভাবে বসবাস কোরতে হয়। সমাজবদ্ধভাবে জীবনযাপন কোরতে গেলে মানুষকে স্বভাবতই একটি নিয়ম-কানুনের অর্থাৎ System-এর মধ্যেই বাস কোরতে হয়। যে System-এর মধ্যে জীবনের বিভিন্ন বিষয়ের নিয়ামক থাকতে হয়। এই System বা নিয়ামককে জীবনব্যবস্থা বলা যায়। স্বভাবতই সেই জীবনব্যবস্থায় একদিকে যেমন থাকবে আত্মিক উন্নয়নের ব্যবস্থা অন্যদিকে আইন কানুন, দণ্ডবিধি, অর্থনীতি, রাজনীতি, সমাজনীতি, শিক্ষানীতি ইত্যাদি সর্বপ্রকার ও সর্ববিষয়ে বিধানও থাকতে হবে।

   

প্রকৃত এসলামের ডাক

আউযুবেল্লাহে মেনাশ’ শায়তানের রাজীম

বেসমেল্লাহের রহমানের রহিম

এ যুগের এমাম, এমামুয্‌যামান ( The Leader of the Time )

জনাব মোহাম্মদ বায়াজীদ খান পন্নীর পক্ষ থেকে

প্রকৃত এসলামের ডাক

যারা দুনিয়ার কিছুমাত্র খবরও রাখেন তাদের বোলতে হবে না যে, এই পৃথিবীতে মোসলেম বোলে পরিচিত ১৫০ কোটির এই জনসংখ্যাটির কী করুণ অবস্থা। পৃথিবীর অন্য সব জাতিগুলি এই জনসংখ্যাকে পৃথিবীর সর্বত্র ও সর্বক্ষেত্রে পরাজিত কোরছে, হত্যা কোরছে, অপমানিত কোরছে, লান্ছিত কোরছে, তাদের মসজিদগুলি ভেংগে চুরমার কোরে দিচ্ছে বা সেগুলিকে অফিস বা ক্লাবে পরিণত কোরছে। এই জাতির মা-বোনদের তারা ধর্ষণ কোরে হত্যা কোরছে। অথচ আমরা এক সময় পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ জাতি ছিলাম। পৃথিবীর অন্যান্য সব জাতি সভয় সম্ভ্রমসহ আমাদের পানে তাকিয়ে থাকত। এই পৃথিবীর অর্ধেকেরও বেশী জায়গায় শাসন ক্ষমতা এই মোসলেম বোলে পরিচিত জাতির হাতে ছিল। তারা ঐ ক্ষমতাবলে ঐ বিশাল এলাকায় আল্লাহর দেয়া জীবন-বিধান প্রতিষ্ঠা কোরেছিল। তখন পৃথিবীতে সামরিক শক্তিতে, জ্ঞানে-বিজ্ঞানে, সভ্যতায়, নতুন নতুন বৈজ্ঞানিক আবিষ্কারে Technology-তে, আর্থিক শক্তিতে এই জাতি সমস্ত পৃথিবীতে শ্রেষ্ঠ ছিল; তাদের সামনে দাঁড়াবার, তাদের প্রতিরোধ করার মত কোন শক্তি পৃথিবীতে ছিল না।

 

 

দাজ্জাল প্রতিরোধকারীর মৃত্যু নেই

যামানার এমাম, এমামুয্‌যামান (The Leader of the Time)

মোহাম্মদ বায়াজীদ খান পন্নী দাজ্জাল চিহ্নিত কোরেছেন-

 দাজ্জাল প্রতিরোধকারীর মৃত্যু নেই


বিশ্বনবী মোহাম্মদ (দ:) বোলেছেন, আখেরী যামানায় বিরাট বাহনে চোড়ে এক চক্ষুবিশিষ্ট মহাশক্তিধর এক দানব পৃথিবীতে আবির্ভূত হবে; তার নাম দাজ্জাল। সে আল্লাহর বদলে নিজেকে মানবজাতির প্রভু (রব) বোলে দাবী কোরবে (বোখারী)। দাজ্জালের সঙ্গে জান্নাত ও জাহান্নামের মত দুইটি জিনিস থাকবে। সে যেটাকে জান্নাত বোলবে সেটা আসলে হবে জাহান্নাম, আর যেটাকে জাহান্নাম বোলবে সেটা আসলে হবে জান্নাত। যারা তাকে প্রভু বোলে মেনে নেবে তাদেরকে সে তার জান্নাতে স্থান দেবে। (বোখারী, মোসলেম)। তার কাছে রেযেকের বিশাল ভাণ্ডার থাকবে। যারা তাকে রব বোলে মেনে নেবে তাদেরকে সে সেখান থেকে দান কোরবে। আর যারা তাকে রব বোলে অস্বীকার কোরবে, অর্থাৎ তার আদেশমত চোলবে না, তাদের সে তার ভাণ্ডার থেকে দান তো কোরবেই না বরং তাদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা (Sanctions) ও অবরোধ (Embargos) আরোপ কোরবে। তার পদতলে সমগ্র মোসলেম বিশ্বের করুণ পরিণতি নেমে আসবে (বোখারী, মোসলেম)। মহানবী এই দাজ্জালের আবির্ভাবকে আদম (আঃ) থেকে কেয়ামত পর্যন্ত মানবজাতির জন্য সবচেয়ে গুরুতর ও সাংঘাতিক ঘটনা বোলে চিহ্নিত কোরেছেন (মোসলেম), শুধু তা-ই নয়, এর মহাবিপদ থেকে তিনি নিজে আল্লাহর কাছে আশ্রয় চেয়েছেন (বোখারী)।
   

জেহাদ, কেতাল ও সন্ত্রাস

বেসমেল্লাহের রহমানের রহিম

জেহাদ, কেতাল ও সন্ত্রাস

 

আমার লেখা বইগুলি প্রকাশ হবার পর থেকে এ পর্যন্ত যে বিষয়টি লক্ষ্য করা গেলো তা হোচ্ছে এই যে মোসলেম বোলে পরিচিত এই জনসংখ্যার যে অংশটুকু এই দেশে আছে তাদের একাংশ হয় ভীত হোয়েছেন না হয় চিন্তিত হোয়ে পোড়েছেন ৷ এই অংশটি হোচ্ছে জাতির সেই অংশ যেটা কিছুতেই আল্লাহ, রসুলের দীন প্রতিষ্ঠা হোক তা চায় না ৷ তারা আমাদের জীবনে আল্লাহর দেয়া জীবন-ব্যবস্থা, দীন প্রতিষ্ঠার চেষ্টাকে সন্ত্রাসী, জঙ্গীবাদ ইত্যাদি নাম দিয়ে মানুষের কাছে হেয় প্রতিপন্ন কোরতে চান ৷আমার এই বইয়ে যে জেহাদ, কেতাল ইত্যাদিকে সন্ত্রাস বোলে চিহ্নিত কোরতে চান ৷জেহাদ আর সন্ত্রাস এক জিনিস নয়, সম্পূর্ণ ভিন্ন বিষয় ৷জেহাদ শব্দের অর্থ কোন কাজ কোরতে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা করা; আর সন্ত্রাস হোচ্ছে হিংসাত্মক কাজ কোরে, বোমা ফাটিয়ে, ধ্বংস কোরে ভয়-ভীতি সৃষ্টি করা ৷কিন্তু মোসলেম নামধারী কিন্তু কার্যত কাফের ও মোশরেক এই লোকগুলি জেহাদকে সন্ত্রাস বোলে চালিয়ে, জেহাদের বিরুদ্ধে মানসিকতা গড়ে তুলতে চান ৷অথচ দীন প্রতিষ্ঠার এই জেহাদ অর্থাত্‍ প্রচেষ্টা ছাড়া দীনুল এসলামই অসম্পূর্ণ; কারণ ঈমানের সংজ্ঞার মধ্যে, মো'মেন হবার সংজ্ঞা, শর্ত্তের মধ্যেই আল্লাহ এই জেহাদ অর্থাৎ দীন প্রতিষ্ঠার এই প্রচেষ্টাকে, সংগ্রামকে ঢুকিয়ে দিয়ে রেখেছেন ৷
   
   
| Friday, 25. April 2014 || Powered by: info@hezbuttawheed.com |
Share |